দলিত শ্রেণীর অধিকার নিয়ে গান্ধী-আম্বেদকর বিতর্ক | মাধ্যমিক ইতিহাস সাজেশন অষ্টম অধ্যায়

 


Madhyamik History Suggestion | Class 10 History Suggestion | মাধ্যমিক ইতিহাস নোটস



ভূমিকা: 
দলিত শ্রেণীর অধিকার নিয়ে গান্ধীজী এবং আম্বেদকর এর মধ্যে বিতর্ক হয়েছিল। দ্বিতীয় গোলটেবিল বৈঠকে (১৯৩১) আম্বেদকর এবং মহাত্মা গান্ধী অংশ নিয়েছিলেন। আর এখান থেকেই উভয়ের মধ্যে দলিত শ্রেণীর অধিকার নিয়ে বিতর্কের পটভূমি তৈরি হয়।

সাম্প্রদায়িক বিভাজন নীতি:
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর রামসে ম্যাক ম্যাকডোনাল্ড ১৯৩২ সালে সাম্প্রদায়িক বিভাজন নীতি ঘোষণা করেছিলেন। এই নীতিতে দলিতদের জন্য পৃথক নির্বাচনের অধিকার দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু গান্ধীজি যারবেদা জেলে আমরণ অনশন শুরু করেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে গান্ধীজি এবং আম্বেদকরের মধ্যে পুনা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। 

আম্বেদকরের চিন্তাভাবনা: 
আম্বেদকরের ইচ্ছা ছিল দলিত শ্রেণীর আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নতি ঘটানো। অন্যদিকে গান্ধীজি দলিতদের সংখ্যালঘু হিসেবে মানতে নারাজ ছিলেন। ফলত ভয়ে এর সমাধান খুঁজতে চেয়েছিলেন।  

গান্ধী চেয়েছিলেন জাতিভেদ প্রথার দূরীকরণ। অন্যদিকে আম্বেদকর 'নিখিল ভারত তপশিলি সংগঠন' নামক একটি রাজনৈতিক মঞ্চ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

মূল্যায়ন:
পরিশেষে বলা যায়, দলিত শ্রেণীর অধিকার নিয়ে গান্ধীজী এবং আম্বেদকর এর মধ্যে বিতর্ক ছিল একটি তাৎপর্যপূর্ণ রাজনৈতিক ঘটনা। যা ভারতবর্ষের জনসমাজকে প্রভাবিত করতে সক্ষম হয়েছিল।


তথ্য সূত্র-
মাধ্যমিক ইতিহাস সহায়িকা (ড. পাহাড়ী)।
Tallent Booster

ইতিহাস ও পাসওয়ার্ড (কে এম সরিফুজ্জামান)।

১. বঙ্গভঙ্গ আন্দোলনে নারীদের ভূমিকা - CLICK HERE

২. প্রকৃতি মানুষ ও শিক্ষার সমন্বয়ে রবীন্দ্রনাথের চিন্তা-CLICK HERE

৩. রশিদ আলি দিবস কেন পালন করা হয়- CLICK HERE

৪. নারী ইতিহাস সম্পর্কে একটি টীকা- CLICK HERE

৫. বামপন্থী আন্দোলনে মানবেন্দ্রনাথ রায়ের অবদান- Click Here


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন
close