ফারুখশিয়ারের ফরমানের শর্ত ও গুরুত্ব | Farrukhsiyar Farman 1907


ফারুখশিয়ারের ফরমান কী | ফারুখশিয়ারের ফরমানের শর্ত | ফারুখশিয়ারের ফরমানের গুরুত্ব

ভূমিকা:

নবাব মুর্শিদকুলি খাঁ বাংলায় ইংরেজ কোম্পানির বিনা শুল্কে বাণিজ্যের অধিকার নিষিদ্ধ করেন। এর প্রতিবাদে জন স্যারমান-এর নেতৃত্বে কোম্পানি মোগল সম্রাট ফারুকশিয়রের কাছে এক দৌত্য পাঠায়। ফারুকশিয়র ইংরেজ কোম্পানির অনুকূলে এক ফরমান জারি করেন (১৭১৭ খ্রি.)। এই ফরমান ‘ফারুখশিয়রের ফরমান' নামে পরিচিত।


শর্ত: 

ফারুকশিয়রের ফরমানের কয়েকটি শর্ত ছিল— 

১. ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি মাত্র তিন হাজার টাকার বিনিময়ে বাংলায় বিনা শুল্কে বাণিজ্যের অধিকার পাবে।


২. কলকাতা, সুতানুটি ও গোবিন্দপুরের পাশাপাশি আরও ৩৮টি গ্রাম কোম্পানি কিনতে পারবে।


৩. বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে দস্তক বা ছাড়পত্র ব্যবহার করতে পারবে।


৪. প্রয়োজন হলে কোম্পানি মুরশিদাবাদের ট্যাঁকশাল ব্যবহার করতে পারবে।


গুরুত্ব: 

ফারুকশিয়রের ফরমান ছিল ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির কাছে গুরুত্বপূর্ণ প্রাপ্তি।  


১. ফারুকশিয়রের ফরমান লাভ করে কোম্পানি তার পূর্বের অধিকারগুলির স্বীকৃতি নতুন করে পেয়েছিল।


২. বাণিজ্যিক প্রতিযোগিতায় ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি অন্যান্য ইউরোপীয় কোম্পানিগুলির তুলনায় অনেক গুণ এগিয়ে গিয়েছিল। 


৩. ফারুকশিয়রের ফরমানকে কাজে লাগিয়ে কোম্পানির কর্মচারীরা ব্যক্তিগত বাণিজ্যে দস্তক প্রথার অপব্যবহার শুরু করে। ফলে মুর্শিদকুলি খাঁ ও তাঁর পরবর্তী বাংলার নবাবের সঙ্গে ইংরেজদের সম্পর্কের অবনতি ঘটে।


তথ্য সূত্র:

ইতিহাস শিক্ষক- অষ্টম শ্রেণী | জে মুখোপাধ্যায়। 



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন
close