ভারতীয় সংবিধানের মৌলিক অধিকার | Fundamental Rights of the Indian Constitution


ভারতীয় সংবিধানের মৌলিক অধিকার | সংবিধানের মৌলিক অধিকার | Fundamental Rights of the Indian Constitution


ভারতের সংবিধানে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মৌলিক অধিকার লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। সংবিধান কর্তৃক স্বীকৃত বলে এই সব অধিকারগুলিকে মৌলিক অধিকার বলা হয়। আবার অধিকার কথার অর্থ হল—যা প্রতিটি ব্যক্তির সকল প্রতিভার পূর্ণ বিকাশ ঘটাবার উপযোগী পরিবেশ গড়ে তোলে।


সব গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সংবিধানেই মৌলিক অধিকার লিপিবদ্ধ করা হয়। ভারতের সংবিধানে সাতটি মৌলিক অধিকার লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। ভারতের সংবিধানে উল্লিখিত মৌলিক অধিকারগুলি কিন্তু অবাধ নয় এবং কোন ব্যাপারেই নাগরিকদের চরম অধিকার দেওয়া হয়নি।


১. সাম্যের অধিকার: 

আইনের চোখে সকলেই সমান এবং আইন সকল ব্যক্তিকেই সমানভাবে রক্ষা করবে। কেবলমাত্র জাতি, বর্ণ, শ্রেণী ও জন্মস্থানের ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় সরকার বা কোন রাজ্য সরকার ভারতীয় নাগরিকদের মধ্যে কোনরূপ পার্থক্য বিধান করতে পারবেন না। সরকারি চাকরিতে সকল নাগরিকের সমান সুযোগ থাকবে। অস্পৃশ্যতা বিলোপ করা হবে। রাষ্ট্র নাগরিকদের কোন উপাধি বা পদবী প্রদান করবে না। নাগরিকগণ কোন বিদেশী রাষ্ট্র প্রদত্ত উপাধি গ্রহণ করতে পারবেন না।


২. স্বাধীনতার অধিকার: 

ভারতের নাগরিকগণ বক্তৃতা ও ভাবপ্রকাশ, শান্তিপূর্ণ ও নিরস্ত্র অবস্থায় জনসমাবেশ, সমিতি ও সংঘ গঠন, ভারতীয় রাষ্ট্রের মধ্যে স্বাধীনভাবে চলাফেরা ও রাষ্ট্রের মধ্যে যে-কোনস্থানে অবস্থান বা বাসস্থান স্থাপন, সম্পত্তি অর্জন, রক্ষা ও বিক্রয় এবং যে কোন পেশা বা বৃত্তি অবলম্বনের স্বাধীনতা ভোগ করেন। কিন্তু এই সব অধিকার অবাধ নয়। কোন ব্যক্তিকে যথেচ্ছভাবে আটক করা যাবে না এবং যথাযথ নিয়ম মান্য না করে কোন ব্যক্তিকে শাস্তি প্রদান করা যাবে না।


৩. শোষণের বিরুদ্ধে অধিকার: 

এই অধিকারের বলে ভারতের নাগরিকগণ শোষণের হাত থেকে রক্ষা পাবেন। কোন নাগরিককে অযথা বেগার খাটান চলবে না। ১৪ বৎসরের কম বয়স্ক কোন কিশোর-কিশোরীকে কারখানায় বা কোন কঠোর পরিশ্রমমূলক কর্মে নিয়োগ করা চলবে না।


৪. ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার:

সকল ব্যক্তি আপন আপন ইচ্ছামত ধর্মাচরণের অধিকার লাভ করবেন। কোন প্রকার ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান সম্পাদনের জন্য কোন নাগরিককে কর দিতে হবে না। কিন্তু নাগরিকের ধর্মাচরণ রাষ্ট্রে শান্তি-শৃঙ্খলা বা সাধারণ নীতি জ্ঞানের বিরোধী হলে তা দণ্ডনীয় হবে।


৫. সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা-বিষয়ক অধিকার:

প্রতিটি নাগরিকের শিক্ষালাভের অধিকার থাকবে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায় নিজ পছন্দমত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন ও পরিচালনা করার অধিকারী হবেন।


৬. সম্পত্তির অধিকার:

সকল নাগরিকের সম্পত্তি ভোগ, দখল ও অর্জন করার অধিকার থাকবে। বে-আইনীভাবে বা যথোপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ছাড়া কারও সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা চলবে না।


৭. সাংবিধানিক প্রতিবিধানের অধিকার: 

উপরোক্ত অধিকারগুলি থেকে বঞ্চিত হলে ভারতের যে কোন নাগরিক এই অধিকারের বলে সুপ্রীম কোর্ট (Supreme Court)-এর শরণাপন্ন হতে পারবেন।


তথ্য সূত্র:

স্বদেশ ও পরিচয় | জে মুখোপাধ্যায়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন
close