উপগ্রহ চিত্রের ব্যবহার ও গুরুত্ব | মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Uses and Importance of Satellite Image


 উপগ্রহ চিত্রের ব্যবহার | উপগ্রহ চিত্রের গুরুত্ব 

১. দূরসংবেদনশীলতা : 

ভূপৃষ্ঠের যে সমস্ত স্থানে মানুষের পক্ষে পৌঁছানো সম্ভব হয়ে ওঠে না, সেখানে উপগ্রহের মাধ্যমে অনায়াসেই চিত্রগ্রহণ করে স্থানগুলি সম্পর্কে আনুমানিক তথ্যও পাওয়া যায়। যেমন—তিব্বতীয় হিমালয়ের দুর্গম ও সংবেদনশীল অঞ্চলগুলি সম্পর্কে উপগ্রহচিত্রের মাধ্যমেই জানা যায়।


২. সমসাময়িক তথ্য : 

কৃত্রিম উপগ্রহ দ্বারা গৃহীত বিভিন্ন তথ্য অত্যন্ত সমসাময়িক, যা বিভিন্ন ধরনের ভৌগোলিক ও বৈজ্ঞানিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।


৩. ভূপ্রকৃতি সংক্রান্ত তথ্য : 

ভূপৃষ্ঠে অবস্থিত বিভিন্ন নদী, নদীর গতি, পাহাড়-পর্বত, মালভূমি, সমভূমি, ব-দ্বীপ প্রভৃতি সব ধরনের ভূপ্রকৃতির বিস্তার ও বণ্টন সম্পর্কে বিশদ ধারণা পাওয়া যায়।


৪. প্রাকৃতিক দুর্যোগ সংক্রান্ত গুরুত্ব : 

নানান ধরনের আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য থেকে শুরু করে কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে প্রাকৃতিক দুর্যোগ সংক্রান্ত পূর্বাভাসও এই উপগ্রহচিত্রের মাধ্যমে পাওয়া যায়।


৫. ভূমির ব্যবহার ও ভূআবরণে পরিবর্তন : 

কোনো দেশের শহর ও গ্রামীণ এলাকায় ভূমির ব্যবহারের (Land Use) পরিবর্তন এবং বনাঞ্চল ও মরু অঞ্চলের (Land cover) আয়তনের হ্রাসবৃদ্ধির কালানুক্রমিক পরিবর্তন উপগ্রহচিত্রের মাধ্যমে ধরা যায় ( Change detection)।


৬. নগরায়ণের বহিঃপ্রকাশ : 

পৃথিবীপৃষ্ঠের বিভিন্ন | স্থানগুলিতে প্রতিনিয়ত নগরায়ণের হ্রাস, বৃদ্ধি, সেখানকার বসতি, যোগাযোগ ও পরিবহণ ব্যবস্থা সম্পর্কে নানান তথ্য উপগ্রহচিত্রের মাধ্যমে পাওয়া যায়।   


৭. একটি উপগ্রহচিত্র ভূপৃষ্ঠের প্রায় ৩০০ বর্গ কিমি অঞ্চলকে প্রদর্শিত করে। ফলে একসাথে অনেক বড়ো স্থানের ভূপ্রাকৃতিক ধারণা পাওয়া যায়।


৮. ভূমির ব্যবহার, বনভূমির বিস্তার, বনভূমির উদ্ভিদের প্রজাতি, দাবানলের ফলে ক্ষতির হিসাব, কৃষিক্ষেত্রের প্রসার, শস্য উৎপাদন ও শস্যের ক্ষতির হিসাবও উপগ্রহচিত্র থেকে বোঝা যায়।


৯. সমুদ্রের স্রোতের দিকনির্ণয়, সমুদ্রপৃষ্ঠের উয়তা, সমুদ্রপৃষ্ঠের জলতলের মান, সমুদ্রে বরফের পরিমাণও উপগ্রহ চিত্র থেকে পাওয়া যায় এবং


সবশেষে বলা যায়, উপগ্রহ চিত্র ডিজিটাল ফর্মে পাওয়া যায় বলে এদেরকে সহজেই কম্পিউটারে ব্যবহার করা যায়। সুতরাং, একথা বলা যেতে পারে যে, ভূবৈচিত্র্যসূচক মানচিত্রের ব্যবহারিক দুর্বলতা কাটিয়ে ওঠার ক্ষেত্রে উপগ্রহ চিত্রগুলির ব্যবহার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে উপগ্রহ চিত্রেরও অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে। তাই, ভূ-বৈচিত্র্যসূচক মানচিত্র ও উপগ্রহ চিত্র আসলে একে অপরের পরিপূরক।


তথ্য সূত্র: মাধ্যমিক ভূগোল ও পরিবেশ সহায়িকা (সম্পাদনায়- শ্রীদেবাশীষ মৌলিক)


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন
close