কারিগরি শিক্ষার বিকাশে বেঙ্গল টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট এর ভূমিকা | বেঙ্গল টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট | মাধ্যমিক ইতিহাস সাজেশন


কারিগরি শিক্ষার বিকাশে বেঙ্গল টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট এর অবদান | মাধ্যমিক ইতিহাস বড় প্রশ্ন উত্তর পঞ্চম অধ্যায় | Madhyamik History Suggestion 


ভূমিকা:

স্বদেশি আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে এদেশে যতগুলি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল তার মধ্যে অন্যতম ছিল বেঙ্গল টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউটের প্রতিষ্ঠা। কারিগরি শিক্ষার বিকাশ ও উন্নয়নে এই প্রতিষ্ঠানটির অবদান প্রাক্‌-স্বাধীনতা পর্বে এবং স্বাধীনতার উত্তরকালে খুবই উজ্জ্বল।


১. প্রতিষ্ঠা:

১৯০৬ খ্রিস্টাব্দের ২৫ জুলাই তারকনাথ পালিতের উদ্যোগে কলকাতা বিজ্ঞান কলেজের কাছে বেঙ্গল টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯১০ খ্রিস্টাব্দে BTI ও বেঙ্গল ন্যাশনাল কলেজ একসঙ্গে মিশে যায়। পরে এর নাম হয় কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি। এরও পরে এর নাম হয় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়।


২. পাঠ্যক্রম:

BTI-তে বিজ্ঞানশিক্ষা ও কারিগরি শিক্ষার উন্নতির জন্য নানা বিষয়ে পাঠদানের ব্যবস্থা ছিল। এখানে পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, শিল্প-প্রযুক্তি বিভিন্ন বিষয়ে পাঠদান করা হত।


৩. উদ্দেশ্য: 

প্রধানত কারিগরি শিক্ষার বিস্তার ঘটানো ছিল এই প্রতিষ্ঠানটির মূল উদ্দেশ্য। পাশাপাশি বাংলার বহু শিক্ষিত যুবক যাতে স্বনির্ভর হতে পারে তার উদ্যোগও গ্রহণ করা হয়েছিল।


৪. অবদান:

বহু ছাত্রছাত্রী এখান থেকে কারিগরিবিদ্যার বিভিন্ন শাখায় জ্ঞানার্জন করে নিজেদের সুপ্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোগে বহু কারিগরি প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে।


উপসংহার: 

ঔপনিবেশিক আমলে কারিগরি শিক্ষার বিস্তার ঘটানো প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল। স্বদেশি উদ্যোগে কারিগরি শিক্ষার বিস্তার এই অভাব কিছুটা পূরণ করেছিল। এই উদ্যোগে BTI একটি অন্যতম প্রতিষ্ঠান ছিল।


তথ্য সূত্র: মাধ্যমিক ইতিহাস সাজেশন (ড. পাহাড়ী)

Tallent Booster 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন
close