আরবদের সিন্ধু বিজয়ের কারণ | সিন্ধু বিজয়ের পটভূমি


আরবদের সিন্ধু অভিযান | আরবদের সিন্ধু অভিযান অভিযানের প্রেক্ষাপট

আরবের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্যিক সম্পর্ক অতি প্রাচীন। আরবে ইসলাম ধর্ম প্রচারিত হওয়ার পূর্ব থেকেই আরবের বণিকরা ভারতের পশ্চিম উপকূল ও দাক্ষিণাত্যে বাণিজ্য করতে আসত। আরবে ইসলাম ধর্ম প্রসারিত হওয়ার পরেও এই যোগাযোগ অব্যাহত ছিল এবং এ সময় থেকেই আরবরা ভারতে রাজ্যবিস্তারে আগ্রহী হয়। 


৬৩৬ খ্রিস্টাব্দে খলিফা ওমর-এর শাসনকালে আরবরা ভারতের পশ্চিম উপকূলে বোম্বাইয়ের থানা, ভারুচ এবং সিন্ধুর দেবল বন্দরে আক্রমণ হানে। এই সব আক্রমণ প্রতিহত হয়। এরপর তারা উত্তর-পশ্চিমের গিরিপথ দিয়ে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করে, কিন্তু সে চেষ্টাও ব্যর্থ হয়। ৬৪৩ খ্রিস্টাব্দে আরব সেনাপতি আবদুল্লাহ মাকরণ দখল করেন। ৬৬৩ খ্রিস্টাব্দে পুনরায় বোলান গিরিপথ দিয়ে তারা ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করে, কিন্তু এই প্রয়াস ব্যর্থ হয়।


৭১২ খ্রিস্টাব্দে আরবরা ভারতের উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত সিন্ধুদেশ জয় করে। আরবী ‘চাচ্‌নামা’, মীর মহম্মদ মাসুদ রচিত 'তারিখ-ই-সিন্ধ’ গ্রন্থ এবং আল বিলাদুরি-র রচনা থেকে সিন্ধুদেশে আরব আক্রমণ ও আরব শাসনের বিস্তৃত বিবরণ পাওয়া যায়। এ সময় দাহির নামে ব্রাহ্মণবংশীয় জনৈক রাজা সিন্ধুদেশে রাজত্ব করতেন।  


আরবদের সিন্ধু আক্রমণের কারণ সম্পর্কে ঐতিহাসিকদের মধ্যে মতভেদ আছে। অনেকে মনে করেন যে, ইসলাম ধর্মের বিস্তারের উদ্দেশ্যেই আরবরা সিন্ধুদেশ আক্রমণ করে। বলা বাহুল্য, এই মত সর্বাংশে গ্রহণযোগ্য নয়, কারণ সিন্ধুদেশ জয়ের পর আরব সেনাপতি বৌদ্ধ ও ব্রাহ্মণ পুরোহিতদের নিজ নিজ অধিকার ভোগ করার অবাধ অধিকার দিয়েছিলেন এবং এ সময় ব্যাপক ধর্মান্তকরণের কোন সংবাদ পাওয়া যায় না। 


অনেকে আবার - মনে করেন যে, ধর্মবিস্তার নয়— ভারতের ধন-সম্পদ লুণ্ঠন করাই ছিল তাদের প্রধান উদ্দেশ্য। যাই হোক, একটি সামান্য ঘটনাকে উপলক্ষ করে তারা সিন্ধুদেশ আক্রমণ করে। মুসলিম ঐতিহাসিকদের বিবরণ থেকে জানা যায় যে, ৭০৮ খ্রিস্টাব্দে সিংহলের রাজা ইরাক ও খোরাসনের আরব শাসনকর্তা অল-হজ্জাজ-এর জন্য উপঢৌকনসহ কয়েকটি জাহাজ পাঠান। সিন্ধুদেশের অন্তর্ভুক্ত দেবল (করাচী) বন্দরে জাহাজগুলি জলদস্যুদের দ্বারা লুণ্ঠিত হলে অল্ হজ্জাজ দাহিরের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবী করেন। 


দাহির ক্ষতিপূরণ দিতে অস্বীকৃত হলে অল্ হজ্জাজ তাঁর বিরুদ্ধে অভিযান পাঠান। ওবেদুল্লা ও বুদাইল নামক দু'জন সেনাপতির নেতৃত্বে পর পর দু'টি অভিযানের ব্যর্থতার পর ৭১২ খ্রিস্টাব্দে মহম্মদ-বিনকাশিম-এর নেতৃত্বে আরবরা রাওরের যুদ্ধে জয়যুক্ত হয়। দাহির নিহত হন এবং আরবরা দেবল ও রাওর-সহ সমগ্র সিন্ধুদেশ দখল করে। ৭১৩ খ্রিস্টাব্দে তিনি মুলতান জয় করেন। অষ্টম শতকের শেষ দিকে সিন্ধুদেশে আরব শাসন দুর্বল হয়ে পড়ে এবং দ্বাদশ শতকের শেষ পর্বে মহম্মদ ঘোরীর আক্রমণে তা বিলুপ্ত হয়।


তথ্য সূত্র:

১. স্বদেশ পরিচয় - জীবন মুখোপাধ্যায়।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন
close